Ransomware কি? Ransomware থেকে বাঁচার উপায় কি ?

র‍্যানসমওয়্যার কি ? (what is Ransomware attack )

Ransomware হলো এক ধরনের ম্যালওয়্যার (Malware) অর্থাৎ বলা যেতে পারে এক ধরনের ক্ষতিকারক ভাইরাস যেটি কিনা যেকোন কম্পিউটার(Computer) ডিভাইস কে হ্যাক করতে পারে এবং যার কম্পিউটার ডিভাইস  তাকে কম্পিউটারে প্রবেশ করতে দেয় না অর্থাৎ যার কম্পিউটার সে নিজে অ্যাক্সেস (access) করতে পারে না। কম্পিউটারের হার্ডডিক্স এর সমস্ত ডাটা হ্যাকারদের (hacker) কাছে চলে যায় এবং কম্পিউটার করলে দেখতে পাবেন যে ওই ডাটাগুলো ফেরত আনার জন্য বিটকয়েনের (Bitcoin) মাধ্যমে আপনাকে কিছু ডলার টাকা পে করতে বলা হবে 300 ডলার বা 500 ডলার। টাকা দিলেও যে আপনার কম্পিউটার এর সমস্ত ডাটা গুলো আপনাকে ফেরত দিবে তার কোন গ্যারান্টি নেই  অর্থাৎ ওই ডাটা গুলো (যেমন ফটো ,ভিডিও, গুরুত্বপূর্ণ ফাইল ,সমস্ত কিছু) ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা নাই বললেই চলে।

Ransomware অ্যাটাক কি ? Rensom War থেকে বাঁচার উপায় কি


কতগুলি জনপ্রিয় Ransomware এর নাম (Ransomware examples):

 

2017 সালে প্রায় 74 টি দেশে WannaCry র‍্যানসমওয়্যার অ্যাটাক হয়েছিল।  WannaCry একটি জনপ্রিয় র‍্যা্যানসমওয়্যা অ্যাটাক এর নাম । এছাড়া আরো কতগুলো জনপ্রিয় Ransomware নাম হল Tescrypt যেটি আগে খুব জনপ্রিয় ছিল, Crowti, Petya, GandCrab ইত্যাদি

 
এটি কিভাবে কম্পিউটার ডিভাইস কে অ্যাটাক করে  :
 
  এই ক্ষতিকারক ভাইরাসটি আপনাদের কম্পিউটার কে অ্যাটাক করতে পারে যেমন অনেক সময় আমাদের ইমেইলে বিভিন্ন রকম লিংক আসে ওই লিংকে যাচাই না করে ক্লিক করলে কিন্তু আমাদের কম্পিউটার ডিভাইস কে এই ভাইরাস টি অ্যাটাক  করে থাকে এছাড়া কোন ক্রাক সফটওয়্যার ডাউনলোড করে ব্যবহার করলে অথবা কোন ফাইল বা অ্যাপ ইনসিকিওর (insecure) ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করলে কিন্তু Ransomware অ্যাটাকের চান্স বেশি থাকে ।
 
Ransomware অ্যাটাক থেকে বাঁচার উপায় : 
 
 এই অ্যাটাক থেকে বাঁচার জন্য আপনাদেরকে সব সময় সচেতন থাকতে হবে আপনারা সব সময় আপনাদের windows operating system কে সবসময় আপডেট রাখবেন এছাড়া important file গুলোকে ব্যাকআপ (backup) করে রাখবেন Google drive, on drive, Dropbox, এ গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলি এখানে ব্যাকআপ করে রাখার পর অবশ্যই কম্পিউটার থেকে এগুলো ডিসকানেক্ট করে দিবেন। এছাড়া আপনারা এক্সট্রা একটি hard drive ব্যবহার করতে পারেন সেখানে গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলি ব্যাকআপ করে রাখতে পারেন। এবং আপনারা কোন সময় যে কোন লিংক চেক (check ) না করে ক্লিক করবেন না।

Leave a Comment